1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও কুরবানীর সমস্ত গোশত গরিব দুঃখী অসহায় মানুষদের মাঝে অকাতরে বিলিয়ে দিলেন গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার ননীক্ষীর ইউনিয়নের বনগ্রাম বাজার, জলিরপাড়ের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও শিক্ষানুরাগী শেখ মোঃ জিন্নাহ।। এবারও চসিকে কোরবানির বর্জ্য পরিস্কার -পরিচ্ছন্নতায় শীর্ষে দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ড শিবগঞ্জে ভ্যান চালকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার হারুন অর রশিদ ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত মংপ্রু মার্মার পরিবারের মানবেতর জীবনযাপন, আয়েরও কোন উৎস নেই ঝিনাইদহ চেক পোস্টে ২৭০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক কালাইয়ে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে পশুর হাট। *মানবিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা-২০২৪ উপলক্ষে ৫০ টি দুস্থ পরিবারের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছে র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম।* এলজিইডি’র বাস্তবায়নে মুকসুদপুরের বিলচান্দা গ্রামের মানুষ শহরের সুবিধা পেতে চলেছে সাগরিকা ও হালিশহর বড়পুল মহেশখাল পাড়স্থ পশুর হাট পরিদর্শনে সিএমপি পুলিশ কমিশনার “সাংবাদিকতা সংক্রান্ত নেতিবাচক লেখাগুলো ফেসবুকে প্রচার বন্ধ হোক”- “সাইদুর রহমান রিমন”। 

ইতালির ‘সিমনা’ বঁধু হয়ে হেলিকপ্টারে ছুটে এলেন আমতলীতে

  • আপডেট সময়ঃ বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৬৪ জন দেখেছেন

পারভেজ রানা,বিশেষ প্রতিনিধিঃ সুদুর ইতালির রাজধানী রোম থেকে ‘সিমনা’ বঁধু হয়ে ছুটে এলেন বরগুনার আমতলীতে।সিমনাকে এক নজর দেখতে শত শত মানুষের ভিড় করেছে।

আজ দুপুরে আমতলী পৌরসভা কার্যালয়ের পশ্চিম পাশে ঈদগাহ ময়দানে প্রিয় স্বামীর স্বজনদের অভ্যর্থনায় অভিভূত ওই বধূ।

জানা গেছে,আমতলী পৌর শহরের কালিবাড়ী এলাকার বাসিন্দা সোনা মাতুব্বরের ছেলে নাসির মাতুব্বর কাজের সন্ধানে ২০০৩ সালে ইতালির উদ্দেশে পাড়ি জমান। জীবন বাজি রেখে ছয়টি দেশ পেরিয়ে ২০০৭ সালে ইতালি পৌঁছেন।

নাসির ইতালিতে বিভিন্ন কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়। কাজের সুবাদে রোমের বাসিন্দা সিমনার সঙ্গে তার দেখা হয়। আলাপ চারিতার মাঝে চলে দুজনের মন দেয়া-নেয়া।টানা চার বছর চুকিয়ে প্রেম করেন তারা। ২০১৩ সালে তাদের প্রেমের রূপায়িত হয় বিয়েতে।বিয়ের পর নাসির-সিমনা দম্পতির দাবিদ নামের পাঁচ বছরের এক পুত্র সন্তান রয়েছে। ইতালি প্রবাসী নাসির বর্তমানে গার্মেন্টসের ব্যবসা করেন। ভালোই কাটছে তাদের দাম্পত্য জীবন।

বৃহস্পতিবার নাসির স্বজনদের দেখতে হেলিকপ্টারে বধূ ও পুত্র সন্তান নিয়ে আমতলী আসেন। বেলা সাড়ে এগারটার দিকে পৌরসভা কার্যালয়ের পশ্চিম পাশে ঈদগাহ ময়দানে তাদের বহনকারী হেলিকপ্টার অবতরণ করে। এ সময় শত শত উৎসুক জনতা তাদের দেখতে ভিড় জমায়। ওই দম্পতিকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানায় স্বজনরা। রোমের কন্যা আমতলীর বধূ সিমনা উৎসুক জনতাকে হাত নেরে অভিবাদন জানান।

ইতালি প্রবাসী নাসির মাতুব্বর বলেন, ‘চারটি বছর জীবন বাজি রেখে ছয়টি দেশ পাড়ি দিয়ে ইতালি গিয়েছি। ওইখানে গিয়ে কাজের সুবাদে সিমনার সঙ্গে দেখা হয়। দেখা থেকে প্রেম, প্রেম থেকে বিয়ে। আমরা এখন ভালোই আছি। স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে হেলিকপ্টারে বধূ, ছেলে দাবিদকে নিয়ে এসেছি। অল্প দিনের মধ্যেই আবার চলে যাব।’

আমতলীর বধূ সিমনা বলেন, ‘আমরা ছেলে সন্তান নিয়ে ভালোই আছি। আপনারা আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, ‘প্রবাসী দম্পতি ভালোভাবেই আমতলী এসে পৌঁছেছেন। তাদের জন্য বেশ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।’

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......