1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
বাংলাদেশ সাংবাদিক ক্লাব, কেন্দ্রীয় স্হায়ী কমিটির পক্ষে,শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন।  অমর একুশে ফেব্রুয়ারি “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস” উপলক্ষে গড়গড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি। রাজশাহীর বাঘায় যথাযথ মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। যোগ্য ও দক্ষতার সাথে খোকা নতুন লুকে টেলিভিশনের পর্দায় আসার সম্ভাবনা। ঝিনাইগাতী শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন আমতলীতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি, বাঘায় রুকুনুজ্জামান রিন্টু ভালুকায় একুশে প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদের প্রতি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি’র শ্রদ্ধা- কালাইয়ে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনে ইসলামী বিপ্লবের আশংঙ্খা করছে।

  • আপডেট সময়ঃ শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০২২
  • ১২৭ জন দেখেছেন

 

 

রিপোর্টঃ মোঃ ওবায়েদুর রহমান সাইদ শরীয়তপুর প্রতিনিধি:- বাংলাদেশের জাতীয় রাজনীতিতে মিশ্র নির্বাচনী বাতাস বইতে শুরু করেছে। একদিকে নির্বাচন কমিশন তার নির্বাচনী রোডম্যাপ ঘোষণা করেছে। অপরদিকে দেশের রাজনৈতিক দল গুলো তাদের স্ব-স্ব অবস্থানের কথা ঘোষণা করেছে।

সরকারী দল পূণরায় ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নতুন নতুন কর্মপরিকল্পনা তৈরী করছে। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জনগনের কাছে তাদের উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরছে।

দেশের একটি বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বিএনপি পূর্বের ন্যায় ঘোষণা দিয়েছে, তারা নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবে না। তারা তাদের ঘোষণা মতো সরকার পতনের আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে।

আর জাতীয় পার্টি আওয়ামী সরকারের অত্যান্ত কাছের আত্নীয় হওয়া সত্ত্বেও এখন তারা ইভিএমের বিরোধিতা করছে। তারা এখন আন্দোলনের মাঠে নামবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।

দেশের প্রায় ৩৮টি ইসলামী রাজনৈতিক দল জাতীয় নির্বাচন নিয়ে এখন পর্যন্ত কোন প্রতিক্রিয়া জানায়নি। তবে তারা অত্যান্ত গোপনে তাদের ক্ষুদ্র স্বার্থ জলাঞ্জলী দিয়ে একটি ইসলামী ঐক্য গঠনের চেষ্টা করছে।

এক অনুসন্ধান করে দেখা গেছে, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলাম, খেলাফত আন্দোলন, খেলাফত মজলিস, হেফাজত ইসলামসহ বিভিন্ন নাম সর্বস্ব ইসলামিক দল গুলোতে বিচ্ছিন্ন ভাবে অনেক ভোট রয়েছে। সেক্ষেত্রে বিগত দিনের স্থানীয় সরকার নির্বাচন এবং উপজেলা নির্বাচনে দেখা গেছে ইসলামী দল গুলো কোথাও দ্বিতীয় আবার কোথাও তৃতীয় হয়েছে।সেই বিবেচনায় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইসলামী দল গুলো এক জোট হয়ে ৩শ আসনে প্রার্থী দেয়ার একটি পরিকল্পনা করছে। আর এই পরিকল্পনা যদি কোন ক্রমে বাস্তবায়িত হয় তাহলে বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো একটি ইসলামী ঐক্য তৈরী হবে এবং তারা জোটবদ্ধ ভাবে জাতীয় নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করতে পারবে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের রাজনীতিতে একটি ইসলামী বিপ্লবের আশংকা রয়েছে।

অতি সম্প্রতি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলাম একটি রাজনৈতিক কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। সেই পরিকল্পনা যদি বাস্তবায়িত হয় তাহলে আগামী নির্বাচনে বিএনপি গৌণ হয়ে পড়বে বলে অনেকে ধারণা করছেন। কারণ, ইসলামী দলগুলো এক প্রতীকে নির্বাচন করলে সেই নির্বাচনটি অন্যরকম একটি মেরুকরণ সৃষ্টি করবে।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......