1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
শেখ ফজলুল হক মনি স্মৃতি সংসদ কর্তৃক আয়োজিত পিকনিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বরগুনা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সাংসদ গোলাম সরোয়ার টুকু’র শুভেচ্ছা বিনিময় চট্টগ্রামে আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম কে অ্যাম্বুলেন্স প্রদানে পিএইচপি ফ্যামিলি আমতলী পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিক বরাদ্দ। বঙ্গলতলি বোধিপুর বন বিহারে ১০তম মহা সংঘদান উদযাপন শেরপুরে অপহরণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার “পরিমার্জিত কারিকলম দক্ষতা অর্জনে শিক্ষক প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই”-আদর্শ শিক্ষক ফোরামের শিক্ষক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন- জাতীয় দৈনিক সমকালে ‘বড় বোঝা হৃদয়ের ছোট্ট কাঁধে’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ ,পেলেন ভ্যানগাড়ী।। আমতলীতে গরুসহ চোর গ্রেপ্তার সিএমপি, পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের ইপিজেড থানার দ্বিবার্ষিক পরিদর্শন সম্পন্ন।

ডিসেম্বরে চালুর আশা খুলনা থেকে মোংলা বন্দর পর্যন্ত নতুন রেলপথ,

  • আপডেট সময়ঃ মঙ্গলবার, ২ আগস্ট, ২০২২
  • ৯৩ জন দেখেছেন

মোঃ ইমানুর রহমান, জেলা প্রতিনিধি (খুলনা):-

রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন বলেন,আমাদের এই প্রকল্পটির মেয়াদ ডিসেম্বর শেষ হয়ে যাচ্ছে। আমাদের মূল চ্যালেঞ্জ ছিল রূপসা রেলসেতু নির্মাণ। সেটি নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। এখন সেটির ওপর ট্র্যাক নির্মাণ করা হবে,পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

রেলমন্ত্রী বলেন, এ রেললাইনের বেশিরভাগ কাজ শেষ হয়েছে। বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে কিছু কাজ বাকি আছে। সিগনালিংয়ের কাজ চলমান। তিন-চার মাসের মধ্যে সেটি সম্পন্ন হবে। কয়েকটি স্টেশনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে, কয়েকটি বাকি আছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এটি আমাদের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এই রেললাইনটির উপকার পাবে ভারত, নেপাল ও ভুটান। কারণ সমুদ্রপথে মোংলা বন্দর হতে পণ্য আমদানি-রপ্তানির বিশাল একটা সুযোগ তৈরি করবে এ রেললাইনটি।

তিনি বলেন, পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের ঢাকা থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত অংশ আগামী জুনে চালু হলে ট্রেনে কুষ্টিয়া হয়ে খুলনায় যোগাযোগ করা সম্ভব হবে। কাজেই তখন থেকেই আমরা এই লাইনটির উপকার পাবো। ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধিসহ কৃষিপণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রেও এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

খুলনা থেকে মোংলা বন্দর পর্যন্ত রেলপথ প্রকল্পটি ভারতীয় অর্থায়নে নির্মাণ হচ্ছে। এ রুটে ৬৪ কিলোমিটার ব্রডগেজ রেললাইন নির্মাণ হচ্ছে। জুলাই মাস পর্যন্ত প্রকল্পের কাজের ভৌত অগ্রগতি ৯৫ শতাংশ।

পরিদর্শনের সময় বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার, পশ্চিমাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার সহ প্রকল্প পরিচালক এবং সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......