1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও কুরবানীর সমস্ত গোশত গরিব দুঃখী অসহায় মানুষদের মাঝে অকাতরে বিলিয়ে দিলেন গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার ননীক্ষীর ইউনিয়নের বনগ্রাম বাজার, জলিরপাড়ের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও শিক্ষানুরাগী শেখ মোঃ জিন্নাহ।। এবারও চসিকে কোরবানির বর্জ্য পরিস্কার -পরিচ্ছন্নতায় শীর্ষে দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ড শিবগঞ্জে ভ্যান চালকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার হারুন অর রশিদ ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত মংপ্রু মার্মার পরিবারের মানবেতর জীবনযাপন, আয়েরও কোন উৎস নেই ঝিনাইদহ চেক পোস্টে ২৭০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক কালাইয়ে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে পশুর হাট। *মানবিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা-২০২৪ উপলক্ষে ৫০ টি দুস্থ পরিবারের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছে র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম।* এলজিইডি’র বাস্তবায়নে মুকসুদপুরের বিলচান্দা গ্রামের মানুষ শহরের সুবিধা পেতে চলেছে সাগরিকা ও হালিশহর বড়পুল মহেশখাল পাড়স্থ পশুর হাট পরিদর্শনে সিএমপি পুলিশ কমিশনার “সাংবাদিকতা সংক্রান্ত নেতিবাচক লেখাগুলো ফেসবুকে প্রচার বন্ধ হোক”- “সাইদুর রহমান রিমন”। 

বিএসটিআই লোগো জালিয়াতি করে,বসত ঘরকে কারখানা হিসেবে ব্যবহার করে, তৈরি হচ্ছে “মদিনা ফারমেন্টেড মিল্ক নামক ভেজাল দই” দেখার যেন কেউ নেই।

  • আপডেট সময়ঃ মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ১৫৫ জন দেখেছেন

জাকারিয়া হোসেন, বিশেষ প্রতিনিধিঃ চট্রগ্রাম মহানগরীর,বন্দর থানাধীন, ৩৮ নং ওয়ার্ড,বাদামতলা, কলসি দিঘী রোড, বাদামতলা, জাহিদ কলোনি ভাড়া বাসার নীচ তলায় ভেজাল দই তৈরির কারখানাটি অবস্হিত।

বন্দর, ইপিজেড, চট্টগ্রাম ঠিকানা ও
বিএসটিআই এর লোগো যুক্ত স্টিকার লাগিয়ে “মদিনা ফারমেন্টেড মিল্ক নামক কাপ দই তৈরি করে বিভিন্ন এলাকার বাজারজাতসহ দোকানে সরবরাহ করে যাচ্ছে ,( মদিনা দই মহাজন) নামে এক ব্যাক্তি।

সেই উৎপাদিত খাদ্য পণ্যে দই প্রতিনিয়ত সাধারণ মানুষসহ ছোট ছোট শিশুরা খাচ্ছেন।
আদৌ কিভাবে তৈরি হচ্ছে এই পণ্য, কিংবা কোথায় এই পন্য তৈরি দই কারখানা, তা জানা নেই বিক্রেতা দোকানদার সহকারে দইয়ের সাথে ঠিকানা যুক্ত এলাকা বাসির।

এই দই খেয়ে সাময়িক অসুস্থ হয়ে যাওয়া নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভোক্তার তথ্য অনুযায়ী পন্যর সাথে যুক্ত ঠিকানায় গেলে অনেক খোঁজা খুঁজি করেও পাওয়া য়ায়নি কারখানার মালিক ও দই উৎপাদন কারি কারখানা, তাহলে কোথায় কিভাবে তৈরি হচ্ছে এই দই?

পরবর্তীতে কলসি দিঘি রোড, বাদামতলা মোড় একটা চায়ের দোকানে পাওয়া যায় বিক্রয়ের জন্য রাখা এই দই, এবং এক পর্যায়ে অনেক জিজ্ঞাসার পড়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক ব্যাক্তি বলেন, দই কারখানা মালিকের নাম আমরা জানি মদিনা দই মহাজন নামে এবং তার কারখানা তো নেই, সে বাদামতলা চৌধুরী পাড়া রোড, জাহিদ কলোনি নিচ তলায় একটা রুমের ভেতরে এই দই তৈরি করেন, পরবর্তী প্রতিবেদক উক্ত ব্যাক্তির দেওয়া ঠিকানায় গিয়েও পাওয়া যায়নি কারখানা কিংবা কারখানার মালিক, কিন্তু সেখানে গিয়ে তৃতীয় আরেক ব্যাক্তির মাধ্যমে পাওয়া যায় মদিনা দই মহাজনের মুঠোফোন নাম্বার, প্রতিবেদক মহাজনকে ফোন দিয়ে তার পরিচয় দেন এবং দই উৎপাদন কারি কারখানার ঠিকানা কোথায় জানতে চাইলে, সে জাহিদ কলোনি ভাড়া বাসায় নিচ তলায় কারখানার কথা স্বীকার করেন, কিন্তু সে অনেক দুরে আছেন তাই এখন কারখানায় আসতে পারবেনা বলে জানান,
প্রতিবেদক আরো জানতে চান বিএসটিআই অনুমোদিত আছে কিনা এবং আরো অনেক বিষয় জানতে চাইলে দই মহাজন বলেন আমার সবকিছুই আছে, কিন্তু আমি ব্যস্হ বর্তমানে অনেক দুরে একটু পরে আপনার সাথে যোগাযোগ করতেছি, এই বলে খুব দ্রুত ফোনটি কেটে দেয়।

পরবর্তী একাধিক বার তার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে সে আর ফোনটি রিসিভ করেনি।

খাদ্য মানুষের জীবন ধারণের এবং সুস্থতার জন্য প্রথম মৌলিক উপাদান, খাদ্যে ভেজাল মেশানোর খবর আর
ভেজাল বিরোধী অভিযান বাংলাদেশের একটি নৈমিত্তিক খবর।
আর এ খাদ্যই যখন জীবনকে নানা ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দেয় তখন মানব সভ্যতার সার্বিক অর্জনই বিস্বাদে পরিণত হয় যাকে বিপন্ন মানবতাই বলা যায়। ভেজাল খাদ্যের সর্বব্যাপী বিস্তারে দেশের সর্বস্তরের মানুষই যে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে তা নানা জটিল রোগের প্রাদুর্ভাবই প্রমাণ করে।

খাদ্যের ভেজাল প্রতিরোধে সরকার এবং জনসাধারণ যে নানাভাবে তৎপর সেটা অনুধাবন করা যায় নিত্য সভা-সমাবেশ, নতুন ন আইন এবং আইন প্রয়োগের নানা অভিযানে। দুঃখের বিষয় এসবের পরও খাদ্যের ভেজাল এবং বিষ প্রয়োগ থেমে নেই। ভেজালকারী চক্র আবিষ্কার ফাঁকি দিয়ে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বাজারজাতের মাধ্যমে ভেজাল পণ্য ভোক্তার আহারের উপকরণ হচ্ছে। ফলশ্রুতিতে শিকার হচ্ছে নানা দুরারোগ্য রোগের।

মদিনা ফারমেন্টেড দই উৎপাদনে ঠিক একই ভাবে, দই ও গো খাদ্যে ব্যাকটেরিয়া, অ্যান্টিবায়োটিক, সীসা এবং কীটনাশক সরবরাহ করা হচ্ছে কিনা তা এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত রয়ে গেল প্রতিবেদকের অজানা।
আরো বিস্তারিত জানতে চোখ রাখুন পরবর্তী প্রতিবেদনে,,,,,,

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......