1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
গোপালগঞ্জে হেলমেট বিহীন চালকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিলেন ডিসি কাজী মাহবুবুল আলম ফরিদপুর মেডিকেলের পরিচালককে প্রত্যাহারের দাবিতে সাংবাদিকদের সড়ক অবরোধ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় অভিযান চালিয়ে জব্দকৃত নিষিদ্ধ চায়না জাল ধ্বংস র‍্যাব-৭ ও র‍্যাব-১১ এর  যৌথ অভিযানে নানা-নাতনি নিহত’ শিরোনামের চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের ঘাতক চালক ফেনী থেকে গ্রেফতার। প্রধান শিক্ষকের গাফিলতিতে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত অংশগ্রহণকারীদের ভোগান্তি অস্ত্রসস্ত্র ও গুলি সহ ভূয়া ডিবি পুলিশ আটক জিআই পণ্যের স্বীকৃতি পেল গোপালগঞ্জের ব্রোঞ্জের গয়না, জলিরপাড়ের ব্রোঞ্জ পল্লীতে আনন্দ উল্লাস ফুলপুর ৫নং সদর ইউনিয়নের শিমুলতলা হতে ডেঁফুলিয়া পযর্ন্ত রাস্তা উদ্ধোধন করলেন শরীফ আহমেদ এমপি শ্রীপুরে জমি নিয়ে বিরোধে আপন চার ভাইয়ের থানায় অভিযোগসহ কোর্টে মামলা। “কেয়া বৃত্তি শিক্ষায় সৃজনশীলতা ও মেধা বিকাশে সহায়ক”

  • আপডেট সময়ঃ শনিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৬৭ জন দেখেছেন

পাহাড়ে ২৬ বছরেও শান্তি পিরেনি সাজেক ও বাঘাইছড়িতে বিভিন্ন স্থানে শিশু, কিশোর-কিশোরীদের প্রতিবাদ কর্মসূচি

রুপম চাকমা বাঘাইছড়ি উপজেলা প্রতিনিধি

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ও বঙ্গলতলী ইউনিয়নে পার্বত্য চুক্তির নেতিবাচক দিক তুলে ধরে এবং মৃত চুক্তির আশায় না থেকে আন্দোলনের আহ্বান জানিয়ে শিশু, কিশোর-কিশোরীরা রাস্তায় নামে এসে প্রতিবাদ করেছে।

আজ সকাল ১০টায় সাজেকে সাজেক ইউনিয়নের বাঘাইহাট শুকনোছড়া ও রেতকাবা দ্বপদা এলাকায় এবং বঙ্গলতলী ইউনিয়নের বটতলা এলাকায় এই প্রতিবাদ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় তারা ‍“মৃত চুক্তির আশা ছেড়ে দাও, আন্দোলনে নামো। আমাদের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা বন্ধ করার আহবান জানানো হয়।

একই সময় বঙ্গলতলি ইউনিয়নের বটতলা এলাকায় শিশু, কিশোর-কিশোরীরা রাম্তায় দাঁড়িয়ে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করে চুক্তি নিয়ে সন্তু-হাসিনার খেলা বন্ধের দাবি জানায়।

এদিকে, বাঘাইহাট সেনা জোন তাদের চুক্তির বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের জন্য সাজেকের হাজাছড়া, উজো বাজার, মাচলং ও করেঙ্গাতলি বাজার থেকে লোকজনকে জোরপূর্বক নিয়ে গেছে এবং জনপ্রতিনিধি ও কার্বারীদেরও হুমকি দিয়ে অনুষ্ঠানে যেতে বাধ্য করা হয়েছে।

১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগ সরকার ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির মধ্যে স্বাক্ষরিত পার্বত্য চুক্তি পার্বত্য চট্টগ্রামে নিপীড়িত-নির্যাতিত পাহাড়ি জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটাতে পারেনি। দীর্ঘ ২৬ বছরে এই চুক্তি পুরোপুরি বাস্তবায়ন তো হয়নি উপরন্তু এ চুক্তিকে ঝুলিয়ে রেখে সরকার পাহাড়ি জনগণের ওপর দমন-পীড়ন চালিয়ে যাচ্ছে। অপরদিকে জনসংহতি সমিতি চুক্তি বাস্তবায়নের দাবি জানালেও এ জন্য সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করার মতো কোন কর্মসূচি দিতে পারেনি। ফলে চুক্তিকে নিয়ে পাহাড়িদের মধ্যে এক ধরনের নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি হয়েছে বলে বক্তরা অভিযোগ করেন।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......