1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
র‌্যাব-৭,চট্রগ্রাম’র অভিযানে আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণ মামলায় “যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত” আসামি মোঃ সুমন গ্রেফতার।  বাঘায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত এক ,গুরুতর আহত দুই। আমতলীতে হিরন হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন মৃধা গ্রেপ্তার  সাজেকে কাচালং নদীতে ফুল ভাসানোর মধ্য দিয়ে বিঝু উৎসবের সুচনা পুলিশি তৎপরতা ও আন্তরিক ভূমিকায় মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগল) মহিলার বাচ্চা প্রসবে সহযোগিতা । ভোটারদের টাকা দিতে বাঁধা দেওয়ায় ছুরিকাঘাতে চেয়ারম্যান সমর্থককে হত্যা। শেরপুর পুলিশ লাইন্সে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত শিকড় ঝিনাইগাতীর উদ্যোগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন সেবক, কামরুজ্জামান (বাবলু কেন্দ্রীয় কৃষি ও সমবায় বিষয়ক উপ-কমিটির (সদস্য) জামালপুরের সানন্দবাড়ীতে অসকস বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী উপহার হতদরিদ্রদের

মহানগর গোয়েন্দা (বন্দর ও পশ্চিম) বিভাগের অভিযানে মোবাইলে আউটসোর্সিংয়ের মেসেজ পাঠিয়ে কোটি টাকার অনলাইন প্রতারকচক্রের সদস্য আটক -০৩

  • আপডেট সময়ঃ বৃহস্পতিবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৪৯ জন দেখেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক:-

চট্রগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা (বন্দর ও পশ্চিম) উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আলী হোসেন মহোদয়ের সার্বিক দিক-নির্দেশনায়, অতি: উপ-পুলিশ কমিশনার সামীম কবির ও সহকারী পুলিশ কমিশনার কাজী মোঃ তারেক আজিজের তত্বাবধানে, বিশেষ টিমের ইন্সপেক্টর হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে, এসআই মোহাম্মদ রাজীব হোসেন, এসআই মোঃ রবিউল ইসলাম, এএসআই মোঃ সাইফুল ইসলাম মুন্সি, এএসআই ঈমাম হোসেন সঙ্গীয় ফোর্সসহ চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে এজাহারনামীয় আল ফয়সাল, আরেফা বেগম এবং তদন্তেপ্রাপ্ত নিজাম উদ্দিনকে আটক করেন এবং তাদের হেফাজত থেকে আত্মসাৎকৃত ১,৮৫,৮১৪ টাকা ও ঘটনায় ব্যবহৃত ৪ টি মোবাইল ফোনসেট জব্দ করেন।

জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় আটককৃত আল ফয়সালের ছোট ভাই সম্রাট দুবাই থেকে আউটসোর্সিং এর নামে আত্মসাতের উদ্দেশ্যে নিজেদের তৈরি ওয়েব সাইট https://forttunemix.com/#/ Ges http://fortuunemix.com এর মাধ্যমে অনলাইনে প্রতারণে করে সম্রাটের মা আরেফা বেগম, তার ভাই আল ফয়সাল এবং তাদের প্রতিবেশি বেলালের নিকট আত্মসাৎকৃত টাকা জমা করেন। একাধিক ভিকটিম জানায় তাদের মোবাইলের হোয়াটসএ্যাপে এসএমএস আসে যে, আপনি চাকুরির পাশাপাশি পার্টটাইম কাজ করে বাড়তি আয় করতে পারবেন। পরবর্তীতে ভিকটিমরা সরল বিশ্বাসে তাদের কথা বিশ্বাস করে চাকুরির পাশাপাশি বাড়তি ইনকামের কথা চিন্তা করে তাদের কথা মত অনলাইন আউটসোর্সিং কাজে যোগ দেয়।

পরবর্তীতে ভিকটিম টেলিগ্রামে তাদের সাথে ম্যাসেজ আদান প্রদান করতে থাকে। অনলাইন প্রতারক ভিকটিমদের তাদের পাঠানো ওয়েবসাইটে একটি একাউন্ট খুলতে বলেন এবং তাদের দেয়া কাজগুলো করলে ভিকটিম পেমেন্ট পাবে বলে জানান। পেমেন্ট উত্তোলনের পূর্ব পর্যন্ত ভিকটিমের একাউন্টে টাকা জমা হতে থাকে। এভাবে কাজ করতে করতে অল্পতেই ভিকটিমের উক্ত ওয়েব সাইটের একাউন্টে ১-২ লক্ষ টাকা জমা হলে অনলাইন প্রতারক ভিকটিমদের জানান যে, আপনি অনলাইনে কাজ করতে গিয়ে কিছু ভুল করেছেন যার কারণে আপনার কিছু পয়েন্ট কাটা গেছে। আপনার একাউন্টের জমাকৃত টাকা তুলতে হলে তাদের প্রি-পেমেন্ট করতে হবে। ভিকটিমদের জমাকৃত টাকা উত্তোলনের লোভে পড়ে তাদের চাহিত ৬৮ হাজার টাকা ব্যাংকে জমা দেয়। পরবর্তীতে আবার তাদের কাজে ভুল হয়েছে বলে ১,লক্ষ টাকা দিতে হবে বলে জানায়। এভাবে ধাপে ধাপে কারো নিকট ৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। কারো নিকট ১৬ লক্ষ টাকা, কারো নিকট থেকে ২২ লক্ষ টাকা সহ কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে প্রতারকচক্র।

চক্রটি পরিচালিত হচ্ছে দুবাই থেকে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের বাংলাদেশীদের একাউন্ট ব্যবহার করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এই প্রতারকচক্রটি। চক্রের মূল হোতাদের মধ্যে একজন হলেন হাটহাজারীর সম্রাট আরেকজন সাতকানিয়ার মান্নান। তারা দুবাই অবস্থান করে বিভিন্ন নামে ছদ্মবেশ ধারণ করে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ভূয়া আউটসোর্সিং এর কথা বলে অনলাইন প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে তার পরিচিত কারোর একাউন্টে পাঠিয়ে সেটা তার ভাই বা মায়ের নিকট পাঠিয়ে দেয়। আবার কোন পরিচিত হুন্ডি ব্যাবসায়ীর মাধ্যমে টাকা দুবাই নিয়ে যায়।

এভাবে দেশের বিপুল পরিমাণ টাকা বিদেশে পাচার হচ্ছে। তদন্তে এক ব্যক্তির একাউন্টে গত ২ মাসে ১ কোটি ৫৭ লক্ষ টাকা ও আরেকটি একাউন্টে ২ কোটি ৫৭ লক্ষ টাকাসহ কারো একাউন্টে ১৮ লক্ষ টাকা, কারো একাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......