1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
র‌্যাব-৭,চট্রগ্রাম’র অভিযানে আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণ মামলায় “যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত” আসামি মোঃ সুমন গ্রেফতার।  বাঘায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত এক ,গুরুতর আহত দুই। আমতলীতে হিরন হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন মৃধা গ্রেপ্তার  সাজেকে কাচালং নদীতে ফুল ভাসানোর মধ্য দিয়ে বিঝু উৎসবের সুচনা পুলিশি তৎপরতা ও আন্তরিক ভূমিকায় মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগল) মহিলার বাচ্চা প্রসবে সহযোগিতা । ভোটারদের টাকা দিতে বাঁধা দেওয়ায় ছুরিকাঘাতে চেয়ারম্যান সমর্থককে হত্যা। শেরপুর পুলিশ লাইন্সে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত শিকড় ঝিনাইগাতীর উদ্যোগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন সেবক, কামরুজ্জামান (বাবলু কেন্দ্রীয় কৃষি ও সমবায় বিষয়ক উপ-কমিটির (সদস্য) জামালপুরের সানন্দবাড়ীতে অসকস বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী উপহার হতদরিদ্রদের

আনোয়ারায় প্রাথমিকে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব নামে থাকলেও বাস্তবে নেই

  • আপডেট সময়ঃ বৃহস্পতিবার, ২০ জুলাই, ২০২৩
  • ৪৫ জন দেখেছেন

এস এম মঈনউদ্দীন, আনোয়ারা :: চট্টগ্রামের

আনোয়ারা উপজেলায় ১১০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হয়। আনোয়ারা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নামে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব থাকলে বাস্তবে এর কোন অস্তিত্ব নেই। এ ল্যাব উদ্বোধনের বছরের পর বছর পার হলেও শিক্ষার্থীরা ল্যাব চোখেই দেখেনি। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ জ্ঞানভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থা তৈরি ও দেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে প্রাথমিক স্থর থেকে আইসিটি শিক্ষার যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। কিন্তু আনোয়ারা উপজেলার শিক্ষা অফিসার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও প্রশাসনের সঠিক তদারকির অভাবে আনোয়ারায় সরকারের এ মহৎ উদ্যোগ ভেস্তে যাচ্ছে।

সরেজমিনে উপজেলার আনোয়ারা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের কোন কক্ষই দেখা যায়নি। এ স্কুলের প্রধান শিক্ষক কে এম ছরোয়ার হোছাইন জানান, এই স্কুলে ৩৭১ জন ছাত্রছাত্রী হওয়ায় শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের জন্য আলাদা কোন কক্ষ করার সুযোগ হচ্ছে না। একাধিক শিক্ষার্থীরা জানান, বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেছি কিন্তু ল্যাব কি চোখে দেখেনি। শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবে হাতে কলমে আমাদেরকে কম্পিউটার কিছুই শিখানো হয়নি। ডিজিটাল ল্যাবের দেওয়া জিনিসগুলো ঠিকমতো আছে কিনা সন্দিহান জানিয়েছে  অভিভাবকরা। এ ব্যাপারে আনোয়ারা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল নুর চৌধুরী জানান, শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের এমন হাল মেনে নেওয়া যায় না। স্কুল প্রধানের সদিচ্ছা থাকলে সীমিত সামর্থ্য দিয়েও ভালো কাজ করা যায়।কম্পিউটার ল্যাবগুলো সচল রেখে আধুনিক ও গুরুত্বপূর্ণ এই প্রযুক্তি শিক্ষা দিয়ে শিক্ষার্থীদের সাধারণ শিক্ষার সাথে ডিজিটাল জ্ঞানে দক্ষ করে তুলা সম্ভব। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দায়িত্ব পালনে অবহেলার কারণে সরকারের যুগোপযোগী এ কার্যক্রমের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে উপজেলার শিক্ষার্থীরা।  তিনি শিক্ষা সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের তদারকির অভাবে এমন হচ্ছে বলে ধারণা করেন। তিনি আরো বলেন, আনোয়ারা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জায়গা সংকুলান না হলে অন্যত্র সরিয়ে ছাত্রছাত্রীদের ল্যাব ব্যবহার করার জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করার আকুল আবেদন জানান।

এ ব্যাপারে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার মো: আনোয়ারুল কাদের বলেন, বিষয়টি আমি তদারকি করে দেখবো এবং অতি দ্রুত চালু করার ব্যবস্থা করবো। এই ল্যাবে কত বাজেট দিয়েছে এবং কয়টি ল্যাপটপ ও ডেস্কটপ দিয়েছে সে বিষয়ে জানতে চাইলে  তাৎক্ষনিক জানে না রেজিস্ট্রার খাতা দেখে জানাতে পারবে বলে জানান। তিনি আরো বলেন, শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবটি অগ্রযাত্রা স্কুল থেকে আনোয়ারা মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আনা হয়েছে। দ্রুত খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......