1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানার চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার এজাহারনামীয় পলাতক আসামি মোঃ রায়হান’কে চট্টগ্রামের পটিয়া থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭ ও র‌্যাব-১১। সীতাকুণ্ডে মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ যানজট সৈনিক কল্যাণ সংস্থা Uno নিকট খেজুরের বীজ প্রদান বাংলাদেশ গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ সমিতি চট্টগ্রাম জেলা শাখা কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান ও মাস ব‍্যাপি সাংগঠনিক কর্মসূচি 2024 সম্পন্ন। বরগুনার তালতলীতে অবৈধ চোলাই মদসহ আটক ১ জন। “শিক্ষায় কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের আন্তরিকতা প্রশংসনীয়”– “শিক্ষায় কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের আন্তরিকতা প্রশংসনীয়” শেরপুরের ঝিনাইগাতী তিনজন হোটেল মালিককে ৬ হাজার টাকা জরিমানা ২ কেজি গাঁজা সহ এক মাদক ব্যবসায়ী বরগুনা ডিবি পুলিশের হাতে আটক।

আনোয়ারা সেটেলমেন্ট অফিসে শুনানিকালে দুই পক্ষের মারামারিতে ৫ জন আহত

  • আপডেট সময়ঃ বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ, ২০২৩
  • ৩৭ জন দেখেছেন

আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা :: চট্টগ্রামের আনোয়ারা সেটেলমেন্ট অফিসে শুনানিকালে দুই পক্ষের মাঝে মারামারি শুরু হয়। এতে উভয় পক্ষের ৫জন আহত হয়। ১মার্চ (বুধবার) উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিসে শুনানি চলাকালে এঘটনা ঘটে। থানাসূত্রে জানান, পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে উভয়পক্ষের কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে এব্যাপারে জাহাঙ্গীর নামে একজন আহত অবস্থায় থানায় হাজির হলে তাকে আগে চিকিৎসা নিয়ে থানায় আসার জন্য বলেন। উপজেলা হাসপাতাল সূত্রে জানাযায়, সেটেলমেন্ট অফিসে মারামারির ঘটনায় বারশত ইউনিয়নের একপক্ষের, জাহাঙ্গীর আলম খাঁন (৩৫), সাইফুল আলম সোহেল খাঁন (৩৩), অপরপক্ষের, সোহাইল খাঁন (৫০), হেজকেল খাঁন (৪৬), হেলাল খাঁন (৪০), জরুরী বিভাগে চিকিৎসা নিয়ে চলে যান। আনোয়ারা উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিসের উপসহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার ডেবিট ত্রিপুরা জানান, বুধবার বিকালে ৫টায় উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিসে বারশত ইউনিয়নের গোবাদিয়া মৌজার বাসিন্দা মো: ইউছুপ ও মো: হেসকেল খানের মধ্যে ভূমি বিরোধীয় সম্পত্তির ৩০ ধারা শুনানি চলাকালে দুই পক্ষের বাকবিতণ্ডা জড়িয়ে মারামারি শুরু করে দেন। এব্যাপারে মো: ইউছুপ জানান, আমরা শুনানি করতে গেলে হেজকেলের ভাই সোহাইল আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে আমার সন্তান সাইফুল আলম সোহেল খাঁন ও জাহাঙ্গীর আলম খাঁন আহত হয়। তারমধ্য জাহাঙ্গীর আলম খাঁন গুরুত্বর আহতে হয়ে বর্তমানে চট্টগ্রামে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫ম তলায় ২৮নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মো: ইউছুপ আরো জানান, ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উপজেলা প্রশাসনের প্রতি আকুল আবেদন জানান। অপরপক্ষ হেজকেল খাঁন জানান, সেটেলমেন্ট অফিসে শুনানি চলাকালে ইউছুপের গ্রুপ আমি এবং আমার ভাইদের উপর হামলা চালায় এতে আমরা তিনজন আহত হই। তারমধ্যে আমার ভাই সোহাইল গুরুত্বর আহত হয়ে চট্টগ্রামের একটি প্রাইভেট হসপিটালে চিকিৎসা নিচ্ছে বলে জানান। এব্যাপারে আনোয়ারা থানার সেকেন্ড অফিসার শাহেদ জানান, সেটেলমেন্ট অফিসের ঘটনা নিয়ে এখনো কোন পক্ষ অভিযোগ করে নাই। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......