1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
বাংলাদেশ সাংবাদিক ক্লাব, কেন্দ্রীয় স্হায়ী কমিটির পক্ষে,শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন।  অমর একুশে ফেব্রুয়ারি “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস” উপলক্ষে গড়গড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি। রাজশাহীর বাঘায় যথাযথ মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। যোগ্য ও দক্ষতার সাথে খোকা নতুন লুকে টেলিভিশনের পর্দায় আসার সম্ভাবনা। ঝিনাইগাতী শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন আমতলীতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি, বাঘায় রুকুনুজ্জামান রিন্টু ভালুকায় একুশে প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদের প্রতি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি’র শ্রদ্ধা- কালাইয়ে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

বদলগাীতে বীরমুক্তিযোদ্ধা খোকার জমি জবর দখল থানায় অভিযোগ অতপর মামলা।

  • আপডেট সময়ঃ রবিবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ১৬৭ জন দেখেছেন

এনামুল কবীর এনাম বদলগাছী  উপজেল প্রতিনিধি নওগাঁ। নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার পারআধাইপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধ আব্বাস আলী খোকার জমি জবর দখল থানায় অভিযোগ অতপর মামলা এলাকায় তোলপাড়।

জানা গেছে নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার কোলা ইউনিয়নের পারআধাইপুর গ্রামে মৃত্যু করমতুল্ল্যা মন্ডলের পুএ বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস আলী খোকা ও ভাতিজা আতাউর রহমানের জমি বেআইনি ভাবে জবর দখল করেছেন মর্মে থানার অভিযোগ সুএে জানা গেছে।

আরোজী সুএে জানা যায় গত ২৯ /০১/২৩ তারিখে বেলা ১০ টায় একই গ্রামের আজাহার আলীর ছেলে জহুরুল ইসলাম, রোস্তম আলী, খাজামদ্দীনের ছেলে লিটন হোসেন,মেছের আলীর  ছেলে আশরাফুল ইসলাম, মশিউর রহমান, ফিরোজের ছেলে টাইগার, মহির উদ্দিনের ছেলে হামিদুল ইসলাম, ও রহিমা বেগম সহ ২০ জন দল বদ্ধ হইয়া অনাধিকার চর্চা করিয়া আইন কে তোয়াক্কা না করে  পার আধাইপুর মৌজার ২৯১ নং খতিয়ানের ১৯২ নং দাগের ১২ শতাংশ জমি বসত বাড়ি   অংশে গত ২৯/১/২৩ তারিখে জবর দখল করেছেন মর্মে  বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস আলী কোখার ভাতিজা আতাউর বাদী বদলগাছী  থানায় অভিযোগ দাখিল করেন। পরবর্তীতে অভিযোগ টি মামলার আমলে নিয়ে গত ৩০/০১ /২৩ ইং তারিখে, স্বাঃ ৩৮১(৩)/১ কোটে প্রেরন করেন থানার ইনচার্জ অফিসার ইনচার্জ  আতিয়ার রহমান।

সরজমিনে ও কাগজ অন্তে জানা গেছে   পাতেজান বেওয়া  স্বামীর ভাই মনছের আলীর কাছ থেকে গত ৬/২/১৯৯০ ইং তারিখে ১৮৭৪ নং দলিল মুলে,১২ শতাংশ, এবং ৩/৫/১৯৭৪ সালে ৯২৩৬ নং দলিল মুলে  কবলা দলিল মুলে মালিক হন। পতেজান বেওয়ার মৃত্যুর পরে তিন ছেলে আক্কাস আলী, আব্বাস আলী কোখা,সাইদ  অধ্যবধি বসত বাড়ির অংশে দখল সহ চলাচলের রাস্তা ও  খলিয়ান হিসাবে কাজ করে থাকে। এবং উক্ত ১২শতাং জমিটির উপর হাইকোর্টে মামলা বিচারাধীন রয়েছে বলে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস আলী খোকা ও ভাতিজা আতাউর রহমান জানান। বাদী আতাউর রহমান জানান তারা দল বদ্ধ হইয়া অনাধিকার চর্চা করিয়া আইন কে তোয়াক্কা না করে জবর দখল করেছে এবং মারপিট সহ বেপক ক্ষতি করেছে। চাচা মুক্তিযোদ্ধা খোকা  বাড়িতে না থাকায় তাকে মারপিট করতে পারেনি।

এবিষয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা খোকা সাংবাদিকদের বলেন আমার মা পাতেজান বেওয়া কবলা দলিল মুলে মালিক, আমি আমার মায়ের ওয়ারিশ সুএে অংশিদার। কিন্তু তারা বেআইনি ভাবে আমার অংশে খুটি গেড়ে বাঁশ দিয়ে ঘিরে রেখেছে এবং আমার চলাচলের রাস্তা বন্ধ করেছে।তিনি আরও বলেন আমি পেটে গামছা বেঁধে যুদ্ধে গিয়েছি।খায়ে না খেয়ে দেশ জাতির জন্য যুদ্ধ করে আজকে নিজের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করেছে প্রতিবেশিরা।আমি আমার মায়ের ওয়ারিশ সুএে জমি ফেরত সহ চলাচলের রাস্তা পরিস্কার চাই।

স্হানীয় পরিষদের চেয়ারম্যান স্বপ্ন সাংবাদিকদের বলেন জায়গা টি ঘিরে রেখেছে মুক্তিযোদ্ধা চাচা আব্বাস আলীর ভাতিজা বাদী হয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েছে , সঠিক বিচারের মাধ্যমেই  মুক্তিযোদ্ধার হোক ফিরে পাবেন বলে আশাবাদী।

ওসি আতিয়ার রহমান  বলেন বিষয় টি হাইকোটেবিচারা ধীন   থাকায় বিবচনা করিয়া সঠিক ভাবে আমলে নিয়ে কোটে সুবিচারের জন্য দাখিল করেছি।আশাবাদী ন্যায় বিচার পাবে।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......