1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
খুলনা বটিয়াঘাটা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন জমে উঠেছে,চেয়ারম্যান পদে লড়াই হবে রাহুল,শিমু,মিলন ও নিতাই মধ্যে। বদলগাছী উপজেলার মিঠাপুর ইউনিয়নের ২৪ ও ২৫ অর্থ বছরের প্রায় সাড়ে ৪ কুঠি টাকার উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন চেয়ারম্যান । ঝিনাইগাতীতে আদিবাসী শিশু ধর্ষণের দায়ে গ্রেপ্তার-১ মহাসড়কে অপরিকল্পিত ব্রিজ ভোগান্তির শেষ নেই লক্ষ্য লক্ষ্য মানুষের সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদা দাবি ও চাঁদা আদায়সহ নগ্ন ভিডিও ধারণের ঘটনায় ভুয়া সাংবাদিকসহ গ্রেফতার-০৩ চট্টগ্রামে ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’মোকাবেলায় বিভিন্ন কর্মসূচির তৎপরতায় মেট্রোপলিটন পুলিশ বাবাকে পিটিয়ে পঙ্গু করার অভিযোগ উঠেছে ছেলে এবং পুত্র বধুর বিরুদ্ধে গভীর নলকূপের ট্রান্সফরমার চুরি করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে অজ্ঞাত এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। র‌্যাব-৭,চট্রগ্রাম’র অভিযানে যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাকিল হোসেন গ্রেফতার।  ঘূর্ণিঝড় রেমালে বন্দরের সব কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা অ্যালার্ট-৪ জারি

কালিয়ায় ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জমি দখলের অভিযোগ!

  • আপডেট সময়ঃ শনিবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৬১ জন দেখেছেন
 ফকির মিরাজ আলী শেখ, বিশেষ প্রতিনিধি: নড়াইলের কালিয়া পৌরসভার মির্জাপুর গ্রামে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের মতৃ আলফাজ আলীর ছেলে কবির হোসেন, মারুফুল ইসলাম ও আঃ রহমানের ছেলে শান্ত মোল্যার বিরুদ্ধে। ২৯ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) সন্ধা ৭ টায় অভিযুক্তরা ভুক্তভোগী গোলাপ শেখের মেয়ে উর্মি বেগমের রেকর্ডীও ও ডিসিআরভুক্ত সম্পত্তিতে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে অনধিকার প্রবেশ করে জমি দখলের চেষ্টা করলে কালিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নিরাপত্তার স্বার্থে মামলা নিস্পত্তি হওয়ার আগ পর্যন্ত উভয় পক্ষকে নালিশী জমিতে না যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। ভুক্তভোগী
উর্মিলা বেগম বলেন, ২০১১ সালে আমার স্বামী ও তিন ননদসহ ৫জনে ২৪২৭ নং কবলা দলিল মূলে অভিযুক্ত শান্ত মোল্যার মাতা রাহিলা বেগমের নিকট থেকে ৫০ নং মির্জাপুর মৌজার ২০৫ নং খতিয়ানের এসএ ৪৮০ ও হাল ৬৯৮ দাগের ৯২ শতক জমির মধ্য হতে দক্ষিন পাশ থেকে ৩০ শতক জমি কবলা দলিল মূলে খরিদ করে ২০১৬ সাল পর্যন্ত দাখিলা কেটে ভোগ দখলে থাকাকালে অভিযুক্তরা গত বছরের আগষ্ট মাসের ৩ তারিখে আমার দখলীয় অংশে জবরদখলের চেষ্টা করলে ওই দিনই বিজ্ঞ আদালতে একটি ১৪৪ ধারা মামলা দায়ের করি, মামলা নং- ৩৯৩/২২ এবং ২৭ অক্টোবর ও ২২ ডিসেম্বর উভয় পক্ষের শুনানীতে স্বাক্ষীগণ হাজির না থাকায় উক্ত মামলাটি ৪৫ ধারায় রুপ নেয়। পুনরায় ২০২৩ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারী শুনানীর দিন ধার্য্য হয়। কিন্তু অভিযুক্তরা বিজ্ঞ আদালতের নির্দশনা উপক্ষো করে জায়গা জবর দখল করার চেষ্টা করলে ২ জানুয়ারী ১৮৮ ধারায় মারুফুল ইসলাম ও কবির হেসেনকে আসামী করে বিজ্ঞ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। ভুক্তভোগী উর্মি বেগম তার দখলে থাকা দলিল মূলের ৩০ শতক ও ডিসিআর এর ১০ শতক জমিতে মামলা চলমান অবস্থায় অভিযুক্তরা যাতে কোন ঝামেলা না করতে পারে তার প্রতিকার চেয়েছেন। এছাড়া ২০২২ সালের ৩১ জানুয়ারী পৌর ভূমি অফিসের নায়েব মোঃ রফিকুল ইসলামের দেওয়া প্রতিবেদনে জানান যায়, মির্জাপুর মৌজার ২০৫ খতিয়ানের ৪৮০ দাগের ০.৫৬৯৫ একর সম্পত্তি বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, ডিসেম্বর ৩১, ২০১২ খ্রিঃ তারিখে “ক” তফশিলভুক্ত অর্পিত সম্পত্তির তালিকায় ওই মৌজার ক্রমিকে ডি,পি,সি (৩৩৪-ক/৬৬) (৫৭-ক/৬৮) নং নথিভুক্ত সম্পত্তি হিসাবে প্রকাশিত হয়েছে। কবির হোসেনের কোন দখল বা ইজারা নেই এবং উর্মি বেগম ২২ শতক জমি লিছ নিয়ে বসতি স্থাপন করে ভোগদখলে আছেন বলে উল্লেখ করেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত শান্ত বলেন, আমার মা রাহেলা বেগম উর্মি বেগমের কাছে জমি বিক্রি করেছিলো। কিন্তু পরবর্তীতে জানতে পারি ঐ সব জমি ভিপি হয়ে গেছে। তখন ঝামেলার কারনে মিটিং করে সাবেক এসিল্যান্ডের মাধ্যমে তাকে ১০ শতক জমি বন্দোবস্ত দেয় এবং মারফুল নামে আরেকজনকে ১৫ শতক জমি বন্দোবস্ত দেয়। এছাড়া উর্মি বেগম তার স্বত্ত বিক্রি করে দিয়ে পুনরায় দাবি করে ঝামেলা করছে। আমি আমার জমিতে ঘর তুলেছি। অভিযুক্ত কবির হোসেন বলেন, দলিল মূলে থাকা জমি ভিপি হয়ে গেলে উর্মি বেগম ভোগ-দখলে থাকা অবস্থায় ২০১৭ সালে আমাদের কিছু টাকা নিয়ে ২৫ শতক জমি হস্তান্তর করে এবং ২ বছর ভোগ-দখলে থাকার পর আমি ঢাকা অবস্থান কালে পরবর্তীতে আমাদের নামে ডিসিআর করে দেওয়ার জন্য উর্মি বেগমকে আরো কিছু টাকা পাঠালে সে নিজের নামে করে নেয়। এ ছাড়া যে ঘরটি উর্মি বেগম নিজের বলে দাবী করছেন ওটা আমাদের ঘর। তালা ভেঙ্গে ওই ঘরে সে প্রবেশ করেছে। অতঃপর উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে সমোঝতা করে তাকে ১০ শতক জমি দেওয়া হয় এবং ১৫ শতক মারুফুলের নামে ডিসিআর হয়। উর্মি বেগম আমাদের অহেতুক হয়রানী করছে বলে তিনি জানান। কালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ তাসমীম আলম বলেন, ১৪৪ ধারা অঙ্গ করায় ভুক্তভোগী ১৮৮ ধারা করেছে। বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক তদন্ত সাপেক্ষে প্রতিবেদন পেশ করা হবে।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......