1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
বাগেরহাট ৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বলইবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। রান্নার কাজে ব্যস্ত মা, খেলতে গিয়ে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান অধ্যাপক রেজাউল করিম স্যারকে কেয়া’র পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন (দ্বিতীয় ধাপ) উপলক্ষে নির্বাচনকালীন দায়িত্ব পালন সংক্রান্তে ব্রিফিং কালাইয়ে চলতি মৌসুমে হিমাগারে আলুর ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে চাষীদের মানববন্ধন রাজা তার নিজ বাড়ীতে খাবার খায় না দশ বছর। বদলগাছী ঐতিহাসিক পাহাড় পুর বৌদ্ধ বিহার আন্তজাতিক যাদুঘর দিবস পালিত। শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে গরুচোর চাক্রের ৫সদস্য গ্রেপ্তার আমতলীতে মহাসড়কের দু’পাশে গড়ে তোলা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ মুকসুদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শেষ মুহূর্তের প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে আবুল কাশেম রাজের দোয়াত কলম মার্কা

শরীয়তপুরে সরকারী জমি দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ, অতঃপর দোকানসহ জমি বিক্রির পাঁয়তারা।

  • আপডেট সময়ঃ সোমবার, ২ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৪১ জন দেখেছেন

রিপোর্টঃ শরীয়তপুর প্রতিনিধি মোঃ ওবায়েদুর রহমান সাইদ। শরীয়তপুরে সরকারী জমি দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ, অতঃপর দোকান সহ জমি বিক্রির পাঁয়তারা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।এমন একটি অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শরীয়তপুর সদর উপজেলার ৮০ নং ধানুকা মৌজায় বি আর এস ১২৮৬ নং দাগের জমিটি সরকারী ১নং খাস খতিয়ানের জমি। যার প্রকৃত মালিক গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে জেলা প্রশাসক।উক্ত জমিটি বর্তমানে উত্তর বালুচরা গ্রামের বাসিন্দা আবদুল খালেকের পুত্র ফারুক সরদারের দখলে রয়েছে। দখলকৃত জমিতে ফারুক সরদার একটি দোকান তুলে ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালনা করছেন। অভিযোগ রয়েছে তিনি দোকান সহ সেই জমি বিক্রির পাঁয়তারা করছেন।

১নং খাস খতিয়ানের জমি ফারুক সরদার কোন আইনের বলে কিভাবে বিক্রি করেন, তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় কয়েক জন লোক বলেন, ৮০ নং ধানুকা মৌজায় বি আর এস ১২৮৬ নং দাগের জমিটি সরকারী ১নং খাস খতিয়ানের জমি। যার প্রকৃত মালিক সরকার।এই খাস খতিয়ানের জমির পাশে ফারুক সরদারের কিছু নিজস্ব জমি রয়েছে। সেই জমির সাথে এই ১২৮৬ নং দাগের সরকারী জমিটি বিক্রির পাঁয়তারা করছে। সরকারী বিধি মোতাবেক ফারুক সরদারের এই জমি বিক্রি করার কোন বৈধতা নেই।এ ব্যাপারে ফারুক সরদারের সাথে আলাপ কালে তিনি বলেন, আমি শুনেছি এই জমি সম্পর্কে ডিসি অফিসে একটি অভিযোগ করেছে। এই জমির ব্যাপারে আমাদের বৈধ কাগজ রয়েছে।এ ব্যাপারে শরীয়তপুর পৌরসভা ভূমি অফিসের তহসীলদার আবদুর রহমান বলেন, আমি নতুন যোগদান করেছি। অভিযোগ সম্পর্কে আমি তেমন কিছু জানি না। যেহেতু আপনি আমাকে ব্যাপারটি অবগত করলেন, তাই আমি সরেজমিনে গিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......