1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও কুরবানীর সমস্ত গোশত গরিব দুঃখী অসহায় মানুষদের মাঝে অকাতরে বিলিয়ে দিলেন গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার ননীক্ষীর ইউনিয়নের বনগ্রাম বাজার, জলিরপাড়ের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও শিক্ষানুরাগী শেখ মোঃ জিন্নাহ।। এবারও চসিকে কোরবানির বর্জ্য পরিস্কার -পরিচ্ছন্নতায় শীর্ষে দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ড শিবগঞ্জে ভ্যান চালকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার হারুন অর রশিদ ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত মংপ্রু মার্মার পরিবারের মানবেতর জীবনযাপন, আয়েরও কোন উৎস নেই ঝিনাইদহ চেক পোস্টে ২৭০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক কালাইয়ে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে পশুর হাট। *মানবিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা-২০২৪ উপলক্ষে ৫০ টি দুস্থ পরিবারের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছে র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম।* এলজিইডি’র বাস্তবায়নে মুকসুদপুরের বিলচান্দা গ্রামের মানুষ শহরের সুবিধা পেতে চলেছে সাগরিকা ও হালিশহর বড়পুল মহেশখাল পাড়স্থ পশুর হাট পরিদর্শনে সিএমপি পুলিশ কমিশনার “সাংবাদিকতা সংক্রান্ত নেতিবাচক লেখাগুলো ফেসবুকে প্রচার বন্ধ হোক”- “সাইদুর রহমান রিমন”। 

স্কুলের মালামাল বিক্রি করে দিলেন সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক।

  • আপডেট সময়ঃ মঙ্গলবার, ১ নভেম্বর, ২০২২
  • ৯৫ জন দেখেছেন

রিপোর্টঃ মোঃ ওবায়েদুর রহমান সাইদ শরীয়তপুর প্রতিনিধি। শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার বিঝারি ইউনিয়নের ৯৪নং দিগম্বরপট্রি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক মিলে স্কুলের মালামাল বিক্রি করে দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।বিদ্যালয়ের জরাজীর্ণ লোহার বেঞ্চ ও দরজাসহ অন্য আসবাবপত্র বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্কুলটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও এলাকাবাসীর মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।আজ সকালে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় সভাপতি নুরুজ্জামান ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা কোহিনূর বেগম দুজনে মিলে স্কুলের দরজা বেঞ্চসহ প্রায় ৫০০’শ কেজি লোহার মালামাল বিক্রি করেন।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকা আমাকে বলেন, আমি এ বিষয়ে কিছু জানি না। সভাপতি সব জানেন তার সাথে আপনারা যোগাযোগ করে দেখতে পারেন।

এ বিষয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নুরুজ্জামান হাওলাদার আমাকে বলেন, এটা ভুয়া কথা, এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি।

নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন, সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক মিলে স্কুলের দরজা জানালা বিক্রি করে দিয়েছেন। আমরা জানি নতুন একটি ভবন নির্মাণ হবে এখানে।এ বিষয়ে নড়িয়া উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিডি) মোঃ শাহাবুদ্দিন খান বলেন, ৯৪নং দিগম্বরপট্রি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটি নতুন ভবন নির্মাণ হবে, আমরা পুরান ভবনটি ভেঙ্গে স্কুলের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষককে বুঝিয়ে দিবো তার পরে এই মালামাল টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করা হবে।এর আগে যদি কোনো মালামাল কেউ বিক্রি করে থাকে তাহলে এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, আমাকে স্যার বলেছেন তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে আমি সময় পাইনি তাই আগামী বৃহস্পতিবার ৯৪নং দিগম্বরপট্রি স্কুলে যাবো তার পরে প্রতিবেদন দিবো।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার শাহ্ মোঃ ইকবাল মুনসুর বলেন, আপনাদের মাধ্যমে জানতে পেরে আমার সহকারী শিক্ষা অফিসার মিজানুর কে তদন্তের দায়িত্ব দেই। যদি এমন কোনো ঘটনা ঘটে তাহলে ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......