1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
গভীর নলকূপের ট্রান্সফরমার চুরি করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে অজ্ঞাত এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। র‌্যাব-৭,চট্রগ্রাম’র অভিযানে যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাকিল হোসেন গ্রেফতার।  ঘূর্ণিঝড় রেমালে বন্দরের সব কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা অ্যালার্ট-৪ জারি চট্টগ্রামে স্মরণ সভা ইরানের নিরাপত্তা আরো জোরদার করা প্রয়োজন – নিজামী কালাই এ জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উদ্বোধন হারুন অর রশিদ রিমেলের তান্ডবে বাঁধ ভেঙ্গে তলিয়ে গেছে আমতলীর নিম্নাঞ্চল  ইমাম ও মুয়াজ্জিন নিয়োগ নিয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করা কে এই আবদুর রহমান? আমতলীতে ‘রেমাল’ মোকাবেলায় জরুরী সভা, প্রস্তুত ১১১ সাইক্লোন শেল্টার তেতুলিয়ায় উপজেলা নির্বাচন চলাকালীন সময়ে সৌন্দর্য বর্ধক বাঁশঝাড় উধাও ময়মনসিংহের ফুলপুরে দুস্থ অসহায় ৪২৬০জন পেলেন ভিজিএফ কার্ড

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভা”

  • আপডেট সময়ঃ রবিবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২২
  • ৮৫ জন দেখেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক:-২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওয়ার্ড সম্মেলনের তারিখ ঘোষনার নির্দেশ:৩৯,৪০,৩২,২৩,২৬ ও ১নং ওয়ার্ডে সম্মেলন হচ্ছে শীঘ্রই…..

বিশেষ প্রতিবেদন::৩০অক্টোবর,চট্টগ্রাম।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের যেসব ওয়ার্ডে কোন অভিযোগ নেই-সমস্যা নেই-স্বত:স্ফূর্ত ভাবে সম্মেলন করা যাবে সে সব ওয়ার্ডে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে (৩১ অক্টোবরের মধ্যে) সম্মেলনের স্থানসহ তারিখ মহানগর কার্যালয়ে জমা দেয়ার জন্য প্রত্যেক থানার সাংগঠনিক টিমের আহবায়কদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও সভায় নগরীর ৩৯নং দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ড, ৪০ নং উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ড, ৩২ নং আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড, ২৩ নং উত্তর পাঠানটুলী ওয়ার্ড, ২৬নং উত্তর হালিশহর ওয়ার্ড,  ১নং পাহাড়তলী ওয়ার্ড সহ বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়।সেই সকল ওয়ার্ডের সাংগঠনিক টিমের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতৃবৃন্দ থানা এবং ওয়ার্ডের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে সমন্বয় করে সুষ্ঠুভাবে সম্মেলন করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

গতকাল শনিবার (২৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় দারুল ফজল মার্কেটস্থ দলীয় কার্যালয়ে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সিদ্ধান্তের আলোকে এই নির্দেশনা দেয়া হয়।

সভায় শিক্ষা-উপমন্ত্রী ও কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী এম.পি বলেন, আগামী ৪ ডিসেম্বর   প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম আসছেন। আমাদের এই মুহূর্তে নেত্রীর জনসভাকে সফল করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে। এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো-জনসভাকে কিভাবে সর্বকালের সর্ববৃহৎ জনসভায় রূপ দেয়া যায়-সেই লক্ষ্যে কাজ করা।

যেহেতু ওয়ার্ড পর্যায়ে নানান ধরনের অভিযোগ রয়েছে-ওয়ার্ড সম্মেলন করা না গেলেও এই সময়ের মধ্যে সকলের ঐক্যমতের ভিত্তিতে আমরা চাইলে মহানগরের সম্মেলন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পারি। যেহেতু প্রত্যেক ওয়ার্ডে কমিটি আছে-সেখান থেকে কাউন্সিলর করে মহানগর সম্মেলন করা ফেলে যায়। সংগঠনকে তৃণমূল পর্যায়ে শক্তিশালী করতে এবং আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্মেলনের গুরুত্ব রয়েছে। এই লক্ষ্যে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সংগঠনকে শক্তিশালী করার কোন বিকল্প নাই। আমরা এক ও অভিন্ন লক্ষ্যে সামনের দিকে এগুতে চাই।

তিনি বলেন, আগামী ৪ ডিসেম্বর জননেত্রী শেখ হাসিনার জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে আমাদের সবাইকে এখন থেকে নিষ্ঠার সহিত কাজ করতে হবে। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেন, আমরা প্রাথমিক পর্যায়ে যে সমস্ত ওয়ার্ডগুলোর মধ্যে কোন প্রকার আপত্তি নেই-স্বত:স্ফূর্ত ভাবে সম্মেলন করা যাবে সে সব ওয়ার্ডে সহসা সম্মেলন করবো। ৪ ডিসেম্বর মহাসমাবেশের সাথে সাথে ওয়ার্ড পর্যায়ে সম্মেলনগুলো যাতে নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী সাথে সম্পন্ন হয় সে বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্তদের অবশ্যই অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে হবে।

সভায় সাংগঠনিক টিমের প্রধানদের বক্তব্যের আলোকে আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেন, ৩৯,৪০ নম্বর ওয়ার্ডসহ বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করে সভায় অবহিত করেন। সেই সকল ওয়ার্ডের সাংগঠনিক টিমের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতৃবৃন্দ থানা এবং ওয়ার্ডের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে সমন্বয় করে সুষ্ঠুভাবে সম্মেলন করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়।তিনি আরো বলেন, যারা দলে আছেন, দল করেন এবং আগামী দিনে নেতৃত্বে আসবেন, তাদেরকে অবশ্যই পরিশুদ্ধ হয়ে দলের নীতি-আদর্শের প্রতি আনুগত্য থাকতে হবে।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী ৪ ডিসেম্বর চট্টগ্রামে আসছেন। তিনি চট্টগ্রামবাসীর উদ্দেশ্যে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য দেবেন এবং আশা ভরসার নির্দেশনা দিবেন। এই লক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। শুধু বড় সমাবেশ নয়, যেন সর্বজনের অংশগ্রহণে একটি বিশাল জনসমূদ্রে পরিণত হয় সেই আহ্বান জানাই। তিনি আরো বলেন, নীতি-আদর্শ এবং শৃঙ্খলাকে সামনে রেখে তৃণমূলস্তরের নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণভাবে এই সমাবেশে যোগদান করবেন। এক্ষেত্রে কোন ব্যতয় ঘটতে দেওয়া হবে না।

সভায় সাংগঠনিক টিমের পক্ষে বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি আলহাজ্ব নঈম উদ্দিন চৌধুরী, এড. ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, আলহাজ্ব আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব বদিউল আলম, কোষাধ্যক্ষ আলহাজ্ব আবদুচ ছালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম ফারুক, বন ও পরিবেশ সম্পাদক মশিউর রহমান চৌধুরী, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আহমেদুর রহমান ছিদ্দিকী, ধর্ম সম্পাদক হাজী জহুর আহমদ, সভায় উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি এড. সুনীল কুমার সরকার, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য হাসান মাহমুদ সমশের, এড. শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, মোহাম্মদ হোসেন, জোবায়েরা নার্গিস খান সহ কার্য্যনিবাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ, থানা ওয়ার্ড নেতৃবৃন্দ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......