1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
গভীর নলকূপের ট্রান্সফরমার চুরি করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে অজ্ঞাত এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। র‌্যাব-৭,চট্রগ্রাম’র অভিযানে যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাকিল হোসেন গ্রেফতার।  ঘূর্ণিঝড় রেমালে বন্দরের সব কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা অ্যালার্ট-৪ জারি চট্টগ্রামে স্মরণ সভা ইরানের নিরাপত্তা আরো জোরদার করা প্রয়োজন – নিজামী কালাই এ জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উদ্বোধন হারুন অর রশিদ রিমেলের তান্ডবে বাঁধ ভেঙ্গে তলিয়ে গেছে আমতলীর নিম্নাঞ্চল  ইমাম ও মুয়াজ্জিন নিয়োগ নিয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করা কে এই আবদুর রহমান? আমতলীতে ‘রেমাল’ মোকাবেলায় জরুরী সভা, প্রস্তুত ১১১ সাইক্লোন শেল্টার তেতুলিয়ায় উপজেলা নির্বাচন চলাকালীন সময়ে সৌন্দর্য বর্ধক বাঁশঝাড় উধাও ময়মনসিংহের ফুলপুরে দুস্থ অসহায় ৪২৬০জন পেলেন ভিজিএফ কার্ড

মাদারীপুরের জমিজমা নিয়ে পারিবারিক কলোহের জেরে পূজোর অনুষ্ঠানে মন্দিরে যাওয়ার সময় দুই ভাইকে কুপিয়ে আহত, ১ জন আটক

  • আপডেট সময়ঃ সোমবার, ১০ অক্টোবর, ২০২২
  • ১১০ জন দেখেছেন

ফকির মিরাজ আলী শেখ,বিশেষ প্রতিনিধি: মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলায় জমিজমা নিয়ে পারিবারিক কলহের জেরে মন্দিরে যাওয়ার সময় বাবুল কৃশ্ন বাড়ৈ (৪৮) ও তার ছোট ভাই অসীম বাড়ৈ (৪৫) নামে দুই ভাইকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাত ১০ টার দিকে দুর্গাপূজার বিজয়া দশমীর অনুষ্ঠানে অংশ্যগ্রহন করতে যাওয়ার পথে, পলিতা সার্বজনীন দূর্গামন্দীরে পাশের রাস্তায় এঘটনা ঘটে। এঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

 

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোঃ আলমগীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

তিনি বলেন, বুধবার রাত ১০ টার দিকে পলিতা সার্বজনীন দূর্গামন্দীরে পাশের রাস্তায় এহতাহতের ঘটনা ঘটে। এসময় প্রতিপক্ষের আঘাতে উপজেলার খালিয়া ইউনিয়নের পলিতা গ্রামের নারায়ন বাড়ৈর দুই ছেলে বাবুল কৃষ্ণ বাড়ৈ (৪৮) ও তার ছোট ভাই অসীম বাড়ৈ (৪৫) আহত হয়। তারা দুজনেই পেশায় শিক্ষক। রাত ১১ টা থেকে তারা মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।  এঘটনায় একই গ্রামের চিত্তরঞ্জন বাড়ৈর ছেলে বিনয় বাড়ৈকে (৫৫) আটক করেছে পুলিশ। সে এখন থানা হেফাজতে রয়েছে।

 

তিনি আরো বলেন, বাবুল ও বিনয়ের পরিবারের সাথে জমিজমা নিয়ে বিরোধ রয়েছে। এবিষয়ে আদালতে একটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। এসব নিয়েই এঘটনা ঘটতে পারে। ভুক্তভোগীর পরিবার মৌখিকভাবে আমাকে মামলার বিষয়টি জানিয়েছেন। তারা যদি লিখিত অভিযোগ দেন। তাহলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

 

ভুক্তভোগী বাবুলের ছোটভাই শশাঙ্ক বাড়ৈ বলেন, ২০১৮ সাল থেকে বিনয়ের পরিবারের সাথে আমাদের জমিজমা নিয়ে মামলা চলছে। এটা আমাদের কেনা সম্পত্তি। কিন্তু তারা ভারত থেকে একজনকে জমির মালিক বানিয়ে আমাদের জমি দখলের জন্য আদালতে মামলা করেছে। বুধবার রাত ১০ টায় আমার ভাই বাবুল ও অসীম পলিতা পূর্ব পাড়া সার্বজনীন দূর্গা মন্দির এর বিজয় দশমীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গেলে। বিনয় তার সহযোগী তন্ময়, স্বপন, তুষার, ও চঞ্চল বাড়ৈ এবং রতন বৈরাগী কে সাথে নিয়ে তাদের উপর হামলা করে তাদের দা (দেশীয় অস্ত্র) দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। পূর্বপরিকল্পিতভাবে আমার ভাইদের হত্যার উদ্দেশ্যে তারা এই হামলা চালিয়েছে।

 

তিনি আরো বলেন, আমার দুইভাই ও আমি পেশায় শিক্ষক। সামান্য জমির জন্য কিভাবে তারা আমার ভাইদেরকে কোপাতে পারল? তারা বর্তমানে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আমরা এই বিষয়ে মামলা দায়ের করব। আর আমার ভাইদের উপর হামলার বিচার চাই।

 

হামলা ও দা দিয়ে কোপানোর বিষয়ে জানতে চাইলে আটককৃত বিনয়ের ছোটভাই তন্ময় বাড়ৈ বলেন, ওইখানে শুধু হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। আমাদের কেও তাদের দা দিয়ে কোপায়নি। বুধবার মন্দিরে বিজয় দশমীর উৎসব চলছিল এ সময় দুটো ছেলে মন্দিরের মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত আসনে গিয়ে, মহিলাদের ইভটিজিং করছিল। এ সময় তাদের নিষেধ করলে তারা আমাদের সাথে বাজে ব্যবহার করে। এসময় মন্দিরে তাদের সাথে কথা-কাটাকাটি হয়। পরে তারা তাদের বাড়িতে গিয়ে লোকজন নিয়ে আসে আমাদেরকে মারার জন্য। পরে মন্দিরের বাইরে বাবুল ও তার আত্মীয়-স্বজনের সাথে আমাদের হাতাহাতি ও ধস্তাধস্তি হয়। এসময় তাদের দুই/তিনজন আহত হয় এবং তাদের কিছুটা কেটে যায়।

 

তিনি আরো বলেন, কাকতালীয় ভাবে আর একটা বিষয় হল, জমিজমা নিয়ে তাদের সাথে একটি পরিবারের (হরসিত বাড়ৈর) সাথে মামলা চলছে। পরিবারটি আমাদের আত্মীয় হওয়ায় আমরা শুধু ওই পরিবারকে মামলার বিষয়ে সমর্থন দিয়েছি। তাই তারা বলছে। পূর্বপরিকল্পিতভাবে ওই হত্যার উদ্দেশ্যে, আমরা তাদের উপর হামলা চালিয়েছি। এটা সম্পুর্ন মিথ্যা কথা।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......