1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
শেখ ফজলুল হক মনি স্মৃতি সংসদ কর্তৃক আয়োজিত পিকনিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বরগুনা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সাংসদ গোলাম সরোয়ার টুকু’র শুভেচ্ছা বিনিময় চট্টগ্রামে আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম কে অ্যাম্বুলেন্স প্রদানে পিএইচপি ফ্যামিলি আমতলী পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিক বরাদ্দ। বঙ্গলতলি বোধিপুর বন বিহারে ১০তম মহা সংঘদান উদযাপন শেরপুরে অপহরণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার “পরিমার্জিত কারিকলম দক্ষতা অর্জনে শিক্ষক প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই”-আদর্শ শিক্ষক ফোরামের শিক্ষক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন- জাতীয় দৈনিক সমকালে ‘বড় বোঝা হৃদয়ের ছোট্ট কাঁধে’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ ,পেলেন ভ্যানগাড়ী।। আমতলীতে গরুসহ চোর গ্রেপ্তার সিএমপি, পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের ইপিজেড থানার দ্বিবার্ষিক পরিদর্শন সম্পন্ন।

বান্দরবানে প্রবারনা পূর্ণিমা উৎসবের উদ্বোধন করেন পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রী জনাব বীর বাহাদুর উশৈসিং (এমপি) ৷

  • আপডেট সময়ঃ রবিবার, ৯ অক্টোবর, ২০২২
  • ১৩৬ জন দেখেছেন

মোঃ আসাদুল ইসলাম, বান্দরবান পার্বত্যজেলা:- রোজ শনিবার ৮-১০-২০২২ ইং তারিখ সন্ধ্যায় বান্দরবান রাজার মাঠে, মহাঃ ওয়াগ্যোয়াই পেয়ে ১৩৮৪ সাকক্রয় শুভ প্রবারনা উৎসব অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন,গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পার্বত্য চট্রগাম বিষয়ক মন্ত্রালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি,এ সময় তিনি বলেন, এই ওয়াগ্যোয়াই পেয়ের তাৎপর্য দারন করবো,লালন করবো,পালন করবো এবং ভগবানের কাছে প্রার্থনা করবো,এদেশ চিরজীবী হয়,উদজীবিত হয়,স্থায়ী হয় এবং এই ওয়াগ্যোয়াই পেয়ের মাধ্যমে আমাদের পত্তীক বন্ধন আরো দৃরহক।

তিনি আরো বলেন,বাংলাদেশ হল একটি ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা,শেখ হাসিনা প্রায় বলে থাকেন, ধর্ম যার যার, উৎসব আমাদের  সবার,ধর্ম যার যার, এদেশ আমাদের সবার। সর্বপরি জাতি পিতা বঙ্গবন্ধু  যে সোনার বাংলা স্বপ্ন দেখেন,আগামীতে সুন্দর একটি পরিবেশে  আমাদের সন্তানেরা সু শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে,ভালো মানুষ হয়ে,জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পাশে দাড়িয়ে, তিনি যে সম্রদ্য শালী বাংলাদেশ স্বপ্ন দেখেন,বঙ্গবন্ধু যে অ সমাপ্ত সোনার বাংলা, যেটি আমাদের সন্তানেরা গড়বে, এটা আমি ভগবান বৌদ্ধদের কাছে প্রার্থনা করবো।

উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক লুৎফর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, অশোক কুমার পাল,পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের প্রকল্প পরিচালক আব্দুল আজিজ, বান্দরবান পৌরসভার সফল মেয়ের, মোঃ ইসলাম বেবী, উৎসব উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক শৈটিং ওয়াই সহ সকল ধর্মের জনগন উপস্থিত ছিলেন। এ সময় বক্তারা তাদের বক্তব্যে, মহাঃ ওয়াগ্যোয়াই পেয়ের তাৎপর্য তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ত করেন,উৎসব উদযাপন কমিটির সভাপতি থেওয়াং( হ্লাএমং)।

এদিকে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা ফানুস বাতি বানিয়ে আকাশে রঙ বেরঙের  শত শত ফানুস বাতি উড়ান। উদ্বোধনের পর স্থানীয় শিল্পীগোষ্ঠীদের পরিবেশনায় মনোরঞ্জন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নাচে গানে মাতিয়ে তুলেন পাহাড়িরা।

৯ অক্টোবর বিহারের উদ্দেশ্য রথটানা,পিঠা উৎসব, ফানুস বাতি উড়ানো এবং সর্বশেষ ১০ অক্টোবর  মধ্যরাতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা সহকারে সাংঙ্গু নদীতে রথ বিসর্জনে মধ্যে দিয়ে শেষ হবে বৌদ্ধ ধর্মাবলীর এই মহা আয়োজন।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......