1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
বাগেরহাট ৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বলইবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। রান্নার কাজে ব্যস্ত মা, খেলতে গিয়ে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান অধ্যাপক রেজাউল করিম স্যারকে কেয়া’র পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন (দ্বিতীয় ধাপ) উপলক্ষে নির্বাচনকালীন দায়িত্ব পালন সংক্রান্তে ব্রিফিং কালাইয়ে চলতি মৌসুমে হিমাগারে আলুর ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে চাষীদের মানববন্ধন রাজা তার নিজ বাড়ীতে খাবার খায় না দশ বছর। বদলগাছী ঐতিহাসিক পাহাড় পুর বৌদ্ধ বিহার আন্তজাতিক যাদুঘর দিবস পালিত। শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে গরুচোর চাক্রের ৫সদস্য গ্রেপ্তার আমতলীতে মহাসড়কের দু’পাশে গড়ে তোলা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ মুকসুদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শেষ মুহূর্তের প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে আবুল কাশেম রাজের দোয়াত কলম মার্কা

বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে আবারো আলোচনায় এমপি ফারুক

  • আপডেট সময়ঃ শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০২২
  • ১২০ জন দেখেছেন

রাজশাহী ব্যুরো :- রাজশাহী-১ আসনের (তানোর-গোদাগাড়ী) এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর মালিকানাধীন ফ্লাটের সার্ভিস চার্জ বৃদ্ধি সভায় উপস্থিত না হওয়ায় ৭ জনের বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। যদিও  ফ্লাটগুলো এমপির নিকট থেকে কিনে নিয়ে সেখানে বসবাস করছেন তাঁরা। কিন্তু হঠাৎ  বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তাঁদের ফ্লাটের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন এমপির কর্মচারীরা। অথচ নর্দান পাওয়ার সাপ্লাই কম্পানীতে (নেসকো) নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেও আসছেন তাঁরা। কিন্তু শুধুমাত্র সার্ভিস চার্জ বৃদ্ধি সভায় উপস্থিত হতে না পারায় নেসকোর অনুমতি ছাড়ায় বাড়ির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন এমপির লোকজন। যেটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ বলেও দাবি করেছেন নেসকোর দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।

আব্দুল আলীম নামের এক ফ্লাট মালিক বলেন, তিনি রাজশাহী নগরীর নিউমার্কেট এলাকায় থিম ওমর প্লাজায় এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর মালিকানাধীন বহুতল ভবনের একটি ফ্লাট কিনে সেখানে বসবাস করে আসছেন। গত তিন বছরে এমপি ওই ভবনের প্রতিটি ফ্লাটের সার্ভিস চার্জ ১৫শ টাকা থেকে ৩ হাজার টাকায় নিয়ে গেছেন কোনো মিটিং ছাড়ায়। এরই মধ্যে বুধবার সন্ধ্যায় আবারও  ১ হাজার টাকা বৃদ্ধি করে ৪ হাজার টাকা করেছেন। কিন্তু ওই সভাতে ফ্লাট মালিকদের উপস্থিত থাকতে আগাম জানানো হয়নি। ফলে সেখানে উপস্থিত হতে পারেননি তাঁরা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে এমপি ফারুক চৌধুরীর নির্দেশে  ওই সাতটি ফ্লাটের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়।

অবসরপ্রাপ্ত চিকিৎসক আব্দুল আলিম বলেন, ‘আমি অসুস্থ মানুষ। হঠাৎ দেখি বাড়ির বিদ্যুৎ নাই। জেনারেটরেও বিদ্যুৎ আসে না। কারণ জানতে চাইলে এমপির নিযুক্ত ফ্লাটের কর্মচারীরা জানায়, এমপি স্যারের নির্দেশে যারা গতকালকের সভায় উপস্থিত হয়নি, তাদের বাড়ির সংযোগ কেটে দেওয়া হয়েছে।

জাহিদুল ইসলাম নামের আরেক ফ্লাট মালিক বলেন, ‘আমরা বিদ্যুৎ বিল দেয় নেসকোকে। বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকলে তারা লাইন কাটতে পারে। কিন্তু আমার ফ্লাটের বিদ্যুৎ লাইন কিভাবে অবৈধভাবে এমপির লোকজন কাটতে পারে?

তিনি আরও বলেন, ‘রাজশাহী শহরের কোথাও ফ্লাটের সার্ভিস চার্জ দুই হাজার টাকার ওপরে নাই। কিন্তু এমপি দফায় দফায় চার্জ বৃদ্ধি করে  চার হাজার টাকায় নিয়ে গেছেন। তার পরেও মাস শেষ না হতেই আমাদের ফ্লাটের বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দিয়েছেন তিনি। এটি করতে পারেন না। ফ্লাট আমাদের সার্ভিস চার্জ সেটি আলাদা বিষয়। সে ক্ষেত্রে উনি বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার ক্ষমতা পান কোথায় ?

নেসকোর নির্বাহী প্রকৌশলী অমিত রায় বলেন, ‘একজনের লাইন আরেকজন কাটতে পারেন না। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। অভিযোগ পেলে আমরা ব্যবস্থা নিব।’

এ বিষয়ে জানতে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর মুঠোফোনে  একাধিকবার কল করা হলেও কল রিসিভ হয়নি।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......