1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
বাংলাদেশ সাংবাদিক ক্লাব, কেন্দ্রীয় স্হায়ী কমিটির পক্ষে,শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন।  অমর একুশে ফেব্রুয়ারি “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস” উপলক্ষে গড়গড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি। রাজশাহীর বাঘায় যথাযথ মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। যোগ্য ও দক্ষতার সাথে খোকা নতুন লুকে টেলিভিশনের পর্দায় আসার সম্ভাবনা। ঝিনাইগাতী শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন আমতলীতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি, বাঘায় রুকুনুজ্জামান রিন্টু ভালুকায় একুশে প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদের প্রতি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি’র শ্রদ্ধা- কালাইয়ে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

খুলনায় বাসের ধাক্কায় ০২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

  • আপডেট সময়ঃ সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১০৭ জন দেখেছেন

মোঃ ইমানুর রহমান,জেলা প্রতিনিধি, খুলনা,খুলনা মহানগরীতে সকালে বাসের ধাক্কায় হাফেজ মো. শরিফুল ইসলাম (২৩) নামে একজন হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক ও মো. বেলাল হোসেন (২৪) নামে একজন মসজিদের মুয়াজ্জিন প্রাণ হারিয়েছেন।

তারা দুজনই একটি মোটরসাইকেলে আরোহী ছিলেন।

 

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে খুলনা মহানগরীর হোগলাডাঙ্গা প্রগতি স্কুলের সামনের মোড়ে ‘টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস’ গাড়ির ধাক্কায় প্রাণ হারান তারা।

 

ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী প্রায় ঘণ্টাখানেক খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন ।

 

নিহত হাফেজ মো. শরিফুল ইসলাম বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার উত্তর কুমারিয়া জোলা গ্রামের মো. কাওছার হোসেনের ছেলে। তিনি খুলনার রাজবাঁধ নুরানি হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক ছিলেন।  মো. বেলাল হোসেন রাজবাঁধ এলাকার মো. মোস্তফার ছেলে। তিনি রাজবাঁধ আয়েশাবাদ জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন ছিলেন।

 

স্থানীয়রা জানান, নিহতরা রাজবাঁধের ভিতর থেকে মেইন রোডে মোটরসাইকেলে উঠছিলেন। টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের বাসটি সাতক্ষীরার দিক থেকে খুলনার দিকে আসছিলো। মোটরসাইকেল নিয়ে তারা রাস্তার পাশে ছিলেন। সেখানেই মোটরসাইকেলকে চাপা দিয়ে বাসটি দ্রুত পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই শরিফুল ও বেলাল মারা যান।

 

আরেকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, একটি ট্রাককে সাইট দিতে গিয়ে বাসটি রাস্তার পাশে চলে এসে মোটরসাইকেল চাপা দেয়। বাস ও ট্রাক দুটিই ছিলো বেপরোয়া গতিতে। মোটরসাইকেল ও হেলমেট ভেঙে চুরমার হয়ে যায়। দুই আরোহী প্রাণ হারায়।

 

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট হরিণটানা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমদাদুল হক বলেন, নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘাতক বাস এখনও আটক করা যায়নি।

 

ঘাতক বাস এবং চালককে গ্রেফতারের দাবিতে এলাকাবাসী রাস্তা অবরোধ করে। পরবর্তীতে প্রশাসন আশ্বাস দিলে এলাকাবাসী অবরোধ তুলে নেয়।

 

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......