1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
গভীর নলকূপের ট্রান্সফরমার চুরি করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে অজ্ঞাত এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। র‌্যাব-৭,চট্রগ্রাম’র অভিযানে যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাকিল হোসেন গ্রেফতার।  ঘূর্ণিঝড় রেমালে বন্দরের সব কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা অ্যালার্ট-৪ জারি চট্টগ্রামে স্মরণ সভা ইরানের নিরাপত্তা আরো জোরদার করা প্রয়োজন – নিজামী কালাই এ জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উদ্বোধন হারুন অর রশিদ রিমেলের তান্ডবে বাঁধ ভেঙ্গে তলিয়ে গেছে আমতলীর নিম্নাঞ্চল  ইমাম ও মুয়াজ্জিন নিয়োগ নিয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করা কে এই আবদুর রহমান? আমতলীতে ‘রেমাল’ মোকাবেলায় জরুরী সভা, প্রস্তুত ১১১ সাইক্লোন শেল্টার তেতুলিয়ায় উপজেলা নির্বাচন চলাকালীন সময়ে সৌন্দর্য বর্ধক বাঁশঝাড় উধাও ময়মনসিংহের ফুলপুরে দুস্থ অসহায় ৪২৬০জন পেলেন ভিজিএফ কার্ড

শার্শায় বিজিবি কর্তৃক নির্যাতন ও মিথ্যা হয়রানি মূলক মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

  • আপডেট সময়ঃ শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৫৯ জন দেখেছেন

বিল্লাল হুসাইন।।

বিজিবি কর্তৃক শারীরিক ভাবে অমানুষিক নির্যাতন ও মিথ্যা হয়রানি মূলক মামলা দেওয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন রিমা খাতুন নামে এক গৃহবধূ।

শুক্রবার বিকালে উপজেলার বাগআঁচড়া সাতমাইল বাজারে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ পত্রের আলোকে রিমা খাতুন বলেন, বেনাপোল ক্যাম্পের বিজিবি গত ১৪ সেপ্টেম্বর বুধবার গভীর রাত থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টা পর্যন্ত আমাদের বাড়িতে অভিযান চালায়।

এসময় বাড়ি ঘরে ব্যাপক ভাংচুর সহ পরিবারের সদস্যদের উপর শারীরিক নির্যাতন চালালেও কোন মাদকদ্রব্য বা অবৈধ পণ্য উদ্ধার করতে পারেনি।

অথচ আমার স্বামী সোহাগ মিয়া (বড় বাবু) কে এলাকাবাসীর সামনে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়।

গতকাল ১৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় নাটকীয় ভাবে বেনাপোল বিজিবি ক্যাম্পে প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে ঘোষণা দেয় আমার স্বামীকে ইয়াবা, ফেনসিডিল ও গাঁজাসহ আটক করেছে এবং ৩ জনকে আসামি করে বেনাপোল পোর্ট থানায় মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলা করেছে।

এ ঘটনায় রিমা খাতুনের দেবরের স্ত্রী কুলসুমকে ব্যাপক মারধর করায় মারাত্মকভাবে জখম হয়ে বর্তমানে সে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বিজিবির ব্যাপক অভিযানকালে কোন মাদকদ্রব্য বা অবৈধ পণ্য আটক করতে না পারলেও তারা কিভাবে এতগুলো মাদক দিয়ে মামলা দিলো সে বিষয়ে প্রশাসনের কাছে সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জোর দাবি জানান সোহাগ মিয়া (বড় বাবুর) স্ত্রী রিমা খাতুন।

এসময় রিমা খাতুন আরও বলেন, বিজিবির অভিযানকালে স্থানীয় এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। সেখান হতে এক টুকরোও অবৈধ পণ্য উদ্ধার করতে পারেনি। আমার পরিবারের কেহ কখনো কোন অবৈধ কারবারের সাথে সম্পৃক্ত নয়। অথচ আমরা যে মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলার শিকার হয়েছি তার সঠিক বিচার দাবী করছি।

উল্লেখ্য : গত ১৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বেনাপোল সীমান্তের কাগজপুকুর এলাকা থেকে একটি প্রাইভেটকার থেকে ৫ হাজার পিস ইয়াবা, ৪ কেজি গাঁজা ও ১শ পিস ফেনসিডিল সহ সোহাগ মিয়া ওরফে বড় বাবুকে আটক দেখায় বিজিবি।

শুক্রবার ১৬ সেপ্টেম্বর বিকালে উক্ত ঘটনাটি মিথ্যা ও বানোয়াট দাবী করে সংবাদ সম্মেলন করেন সোহাগ মিয়ার স্ত্রী ও তার স্বজনরা।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......