1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত মংপ্রু মার্মার পরিবারের মানবেতর জীবনযাপন, আয়েরও কোন উৎস নেই ঝিনাইদহ চেক পোস্টে ২৭০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক কালাইয়ে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে পশুর হাট। *মানবিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা-২০২৪ উপলক্ষে ৫০ টি দুস্থ পরিবারের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছে র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম।* এলজিইডি’র বাস্তবায়নে মুকসুদপুরের বিলচান্দা গ্রামের মানুষ শহরের সুবিধা পেতে চলেছে সাগরিকা ও হালিশহর বড়পুল মহেশখাল পাড়স্থ পশুর হাট পরিদর্শনে সিএমপি পুলিশ কমিশনার “সাংবাদিকতা সংক্রান্ত নেতিবাচক লেখাগুলো ফেসবুকে প্রচার বন্ধ হোক”- “সাইদুর রহমান রিমন”।  ঝিনাইগাতীতে মিলন হত্যার আসামী কাজল গ্রেফতার র‌্যাব-৭,চট্রগ্রাম’র অভিযানে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’র সক্রিয় সদস্য কর্ণফুলী থানা এলাকা থেকে উগ্রবাদী পুস্তিকা সহ গ্রেফতার -০২।  সোনে মেরিনচর পাড়া প্রাথমিক ও নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয় আলীকদম উপজেলায় শিক্ষা ক্ষেত্রে অনন্য নিদর্শন

দুদকের হাতে ঘুষসহ গ্রেফতার আজিমেল কদর”

  • আপডেট সময়ঃ শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৮০ জন দেখেছেন

বাবুল হোসেন বাবলা: ফটিকছড়ি প্রতিনিধি:১৭সেপ্টেম্বর আলোচিত ফটিকছড়ির সেই শিক্ষা কর্মকর্তা আজিমেল কদরকে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিল বিভাগীয় মামলা থেকে। গত ১৩ সেপ্টেম্বর সিনিয়র সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান স্বাক্ষরিত আদেশ নামায় এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। এদিকে বিভাগীয় মামলা থেকে তাকে অব্যাহতি ও সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহারের খবরে ফটিকছড়ির শিক্ষক সমাজে মিশ্র প্রতিকৃয়া লক্ষ্য করা গেছে।

 

জানা গেছে, ২০১৯ সালের ২৮ মার্চ উপজেলার উত্তর পাইন্দং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা তাসলিমা আক্তারের কাছ থেকে ঘুষ নিচ্ছিলেন আজিমেল কদর। অন্য স্কুলে বদলির আশ্বাস দিয়ে এ টাকা নেয়া হচ্ছিল। দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ পরিচালক লুৎফুল কবির চন্দনের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে তার কার্যালয় থেকে হাতে নাতে ঘুষের ১০ হাজার টাকাসহ তাকে আটক করা হয়। পরে দুদকের চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপ সহকারী পরিচালক নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ফটিকছড়ি থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। তখন তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয় এবং তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় শৃংখলা ভঙ্গের মামলাও হয়। মামলাটি দীর্ঘদিন তদন্তের পর ১৩ সেপ্টেম্বর এ প্রত্যাহারের আদেশ হয়।

 

অপর দিকে বিভাগীয় মামলা থেকে তাকে দুদকের হাতে ঘুষের টাকাসহ আটক শিক্ষা কর্মকর্তা আজিমেল কদরের অব্যাহতি ও সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহারের খবরে ফটিকছড়ির শিক্ষক সমাজে মিশ্র প্রতিকৃয়া লক্ষ্য করা গেছে।

ফটিকছড়ি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, খবরটি জানার পর থেকে শিক্ষকরা ফোন করে খবর নিচ্ছেন। তারা উদ্বিঘ্ন। হাতে নাতে ঘুষের টাকা সহ গ্রেফতার হওয়া এমন কর্তা আবার শিক্ষা অফিসে ফিরে আসবে? সেটি তারা মেনে নিতে পারছেন না।

 

দুদকের মামলাটি এখন স্বাক্ষী গ্রহণের পর্যাযে রয়েছে। সম্প্রতি সহকারী শিক্ষিকা তসলিমা আদালতে স্বাক্ষীও দেন। সেই শিক্ষিকা শারিরীক অসুস্থতার জন্য এখন ছুটিতে আছেন। তিনি বলেন, ওই সময় আমি প্রেগনেট ছিলাম। শারীরীক কসরত কমাতে বদলী হতে চাইছিলাম কাছের কোন বিদ্যালয়ে। তখন তিনি আমার কাছে ঘুষ চান। আমি যখন শিক্ষা অফিসারকে বদলীর জন্য ঘুষের ১০হাজার টাকা দিচ্ছিলাম, তখন মনে হলো আমি আমার বিবেককে বিক্রি করে দিলাম। ওই সময় হটাৎ দুদক কর্মকর্তা এসে তাকে গ্রেফতার করেন। এই কর্তার অব্যাহতির আদেশ অবশ্যই শিক্ষক সমাজে বিরুপ প্রভাব ফেলবে। এদের একেবারে শাস্তি হওয়া উচিত।

 

উল্লেখ্য, এর আগে ২০০৭ সালে তৎকালীন শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ নুরুজ্জামান রহিমা বেগম নামে এক শিক্ষিকার কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার সময় ঘুষের টাকাসহ দুদকের হাতে আটক হয়েছিল।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......