1. admin@dailyoporadhonusondhanltd.net : admin :
শিরোনামঃ
বাংলাদেশ সাংবাদিক ক্লাব, কেন্দ্রীয় স্হায়ী কমিটির পক্ষে,শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন।  অমর একুশে ফেব্রুয়ারি “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস” উপলক্ষে গড়গড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি। রাজশাহীর বাঘায় যথাযথ মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। যোগ্য ও দক্ষতার সাথে খোকা নতুন লুকে টেলিভিশনের পর্দায় আসার সম্ভাবনা। ঝিনাইগাতী শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন আমতলীতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি, বাঘায় রুকুনুজ্জামান রিন্টু ভালুকায় একুশে প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদের প্রতি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি’র শ্রদ্ধা- কালাইয়ে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

যশোর অভয়নগরে ৭ বছরের শিশু কে ধর্ষণের পর হত্যা – আটক-১

  • আপডেট সময়ঃ সোমবার, ৮ আগস্ট, ২০২২
  • ৮৯০ জন দেখেছেন

মোঃরজিবুল ইসলাম ব্যুরো প্রধান(খুলনা বিভাগ):-যশোরের অভয়নগরে ৭ বছরের  শিশু নাইমাকে ধর্ষণের পর হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় আমজাদ নামের এক জনকে আটক করেছে অভয়নগর থানা পুলিশ। শিশু নাইমা উপজেলার প্রেমবাগ ইউনিয়নের ০৯ নং ওয়ার্ডের   মোঃ মনিরুল ইসলামের মেয়ে।

গ্রামে এই ন্যাক্কার জনক ঘটনা দেখতে এলাকার হাজার হাজার মানুষের ভিড় দেখা যায়।

পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শিশু মেয়ে নাইমার সাথে পাশ্ববর্তী আমজাদ নামের একজনের সাথে দোস্ত বন্ধুর সম্পর্ক ছিলো।

আমজাদ হোসেন স্থানীয় একটি মাছের ঘেরে কাজ করে বলে জানা যায়।

শিশু মেয়ে নাইমা ৭ আগষ্ট রবিবার বিকেলে মা’কে বলে দোস্তর ঘেরে গিয়ে পেয়ারা দিয়ে আসি বলে গিয়ে আর ফিরে আসেনি।পরে সন্ধ্যার সময় নাইমাকে খুঁজে পাওয়া না গেলে পরিবারের সদস্যরা আমজাদের কাছে নাইমার কথা জিজ্ঞেস করলে বলে আমি জানিনা। তারপর পরিবারের সকলে ও গ্রামবাসী টর্চ লাইট নিয়ে বিভিন্ন স্থানে খুঁজতে থাকে এবং এলাকায় মাইকিং করা হয়।রাত আনুমানিক ১১ টার দিকে মেয়েটির বড় চাচা রফিক এলাকার লুৎফরের পরিত্যক্ত ঘেরের কচুরীপানার মধ্যে মেয়েটির একটি হাতের অংশ দেখে চিৎকার দিলে এলাকাবাসী শিশু মেয়ে নাইমার মৃতদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশকে খবর দেয়।

অভয়নগর থানা পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছেন এবং ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে একই এলাকার কোরেশ মোল্লার ছেলে আমজাদ হোসেন মোল্লাকে আটক করেছে।

ঘটনা তদন্তে ইতিমধ্যে যশোর পুলিশ ইনভেস্টিগেশন ব্যুরো (পিবিআই) কাজ শুরু করেছে।

মৃত শিশু নাইমা খাতুনের বড় ভাই নাঈম হোসেন জানান,তার বোনকে ধর্ষণ করে হত্যা করে লাশ গুম করার চেষ্টা করা হয়েছে।তিনি আরো বলেন, আমার বোনকে হত্যাকারীদের শাস্তি মৃত্যুদন্ড চাই।

অভয়নগর থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) একেএম শামীম হাসান বলেন, শিশু মেয়েটির লাশ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে হত্যার মোটিভ সম্পর্কে  বলা যাবে।এই ঘটনাটি তদন্তে আমাদের একাধিক টিম ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছে।

শেয়ার করুন

আরো দেখুন......